আবু হুরায়রা রাঃ এর ১০০ ঘটনার ৩ ও ৪ নং ঘটনা

আবু হুরায়রা রাঃ এর ১০০ ঘটনার ৩নং ঘটনা খাইবারে সফর এবং ইসলাম গ্রহণ

দাউসী মুহাজিরীনগণ যখন জানতে পারলেন যে, রাসূলুল্লাহ সা.
গাযওয়ায়ে খাইবারের উদ্দেশে তাশরীফ নিয়ে গেছেন তখন তারা সিদ্ধান্ত
নিলেন- রাসূল সা.-এর প্রত্যাবর্তনের অপেক্ষা না করে খাইবারে গিয়ে
রাসূলুল্লাহ সা.-এর দরবারে উপস্থিত হয়ে যাবাে। আবু হুরায়রা রা.-এর
মদীনা থেকে খাইবারে সফর করলেন এবং তিনি মদীনা থেকে খাইবার
যাওয়ার পথে খুবই আগ্রহ সহকারে কবিতা আবৃত্তি করছিলেন- “হায়!
দীর্ঘ রাতের আর কষ্ট কী যে অসহ্য।
.
তবু আমরা (ধন্য) খুশি, কারণ রাসূলুল্লাহ সা. আমাদেরকে কুফুরীর জিঞ্জির থেকে মুক্ত করেছেন।”
সফরের সময় আবু হুরায়রা রা.’র গােলাম হারিয়ে গিয়েছিল। যখন তিনি
খাইবার পৌঁছে রাসূলে আক্রাম সা.-এর সাথে সাক্ষাতলাভে ধন্য হলেন
এবং ইমামুল আম্বিয়া সা.-এর পবিত্র হস্তে বাইয়াতের সৌভাগ্য হাসিল
করলেন, তখন আশ্চর্যজনকভাবে সেই গােলাম এসে গেলাে । রাসূলুল্লাহ
সা. বললেন, “আবু হুরায়রা! তোমার গােলাম এসে গেছে।” আবু
হুরায়রা রা, আরজ করলেন,
.
“ইয়া রাসূলাল্লাহ! আমি তাকে আল্লাহর রাস্তায় আযাদ করে দিলাম।”
ইসলামের বাইয়াত গ্রহণ করার পর থেকে রাসূলুল্লাহ সা.-এর সান্নিধ্যে
এমনভাবে জড়িয়ে পড়লেন যে, আমৃত্যু সেই হাত আর ছাড়েননি।

আবু হুরায়রা রাঃ এর ১০০ ঘটনার ৩নং ঘটনা ক্ষুধা ও দারিদ্রতা

আবু হুরায়রা রা, তিন বছরের কিছু বেশি সময় আসহাবে সুফফা।
রিযওয়ানুল্লাহি আলাইহিম আজমাঈন এর পবিত্র জামাতের একজন
অন্যতম সদস্য এবং নবী কারীম সা.-এর দরসগাহের একজন দরবেশ
শিক্ষানবীশ ছিলেন। সেই সময়ে আসহাবে সুফফার অন্যান্য সদস্যদের
মতাে কঠিন কষ্ট-ত্যাগ সহ্য করেছেন। আবু হুরায়রা রা, ইলম হাসিল
করা কালে অপরিসীম কষ্ট, ত্যাগ, পেরেশানি সহাস্য মুখে সহ্য করেছেন,
সেই ফিরিস্তি অনেক দীর্ঘ।
.
নিজেই তিনি বর্ণনা করেন, “আমার অবস্থা এমন ছিল যে, যখন পেটে
সামান্য দানা-পানি জুটে যেতাে, তৎক্ষনাত রাসূলে আকদাস সা.-এর
খেদমতে হাজির হয়ে যেতাম। আমি কখনাে না খেয়েছি খামির করা
রুটি, না পড়েছি কোনাে উত্তম পােষাক, না ছিল আমার কোনাে খাদেম,
দাসী। অধিকাংশ সময় ক্ষুধা খুবই জ্বালাতন করতাে, তখন কারাে
সামনে গিয়ে কোরআনের কিছু আয়াত সম্পর্কে জিজ্ঞেস করতাম, অথচ
সেই আয়াত আমার খুব ভালােভাবেই মুখস্ত ছিল। আমার উদ্দেশ্য ছিল,
হয়তাে তিনি আমার দিকে মনােযােগী হয়ে কিছু খেতে দিবেন…!
.
একদিন আবু হুরায়রা রা, এমন তীব্র ক্ষুধার্ত অবস্থায় মসজিদে পৌছলে ।
লােকেরা জিজ্ঞেস করলাে- “হে আবু হুরায়রা! তুমি এ সময়ে এখানে
কীভাবে এসেছাে?” আবু হুরায়রা রা, উত্তর দিলেন, “ক্ষুধার কারণেই
এসেছি।” তাঁরা সমস্বরে বললাে- “আল্লাহর কসম, আমরাও ক্ষুধার
যন্ত্রনায়ই এখানে এসেছি।”
.
এটা স্থির হলাে যে, রাসূলে আক্কাস সা.-এর খেদমতে যাওয়া যাক। সে
মতে সবাই রাসূলুল্লাহ সা.-এর দরবারে উপস্থিত হলে তিনি বললেন, এই
সময়ে তােমরা কেন এসেছাে? তারা বললেন, ইয়া রাসূলাল্লাহ্! ক্ষুধা
আমাদেরকে নিয়ে এসেছে।
.
রাসূলুল্লাহ সা. খেজুরের একটি ঝুড়ি খুঁজে নিলেন। সকলকে দুটি দু’টি
করে খেজুর দিয়ে বললেন, “এই দু’টি খেজুর তােমারদের আজকের
দিনের জন্য যথেষ্ট হবে।” আবু হুরায়রা রা.-এর দু’টি খেজুর নিলেন
এবং একটি খেজুর খেয়ে অপরটি জামায় রেখে দিলেন। রাসূলুল্লাহ সা.
এই ঘটনা দেখে বললেন, হে আবু হুরায়রা, তুমি খেজুরটি উঠিয়ে রাখলে
কেন? আবু হুরায়রা রা. উত্তরে বললেন, ইয়া রাসূলাল্লাহ্! এই খেজুর
আমি আমার আম্মার জন্য রেখেছি। রাসূলুল্লাহ সা. বললেন, এটা তুমি
খেয়ে নাও। আমি তােমার আম্মাজানের জন্যও দুটি খেজুর দেবাে।
রাসূলুল্লাহ সা.-এর নির্দেশ মােতাবেক তিনি সেই খেজুরটিও খেয়ে
নিলেন। রাসূলে আক্রাম সা.ও তার আম্মাজানের জন্য দুটি খেজুর
দিলেন।
(ফাতহুল বারী : খন্ড- ৮, পৃষ্ঠা- ৭৭। তবকাতে ইবনে সা’আদ : খন্ড-
২, পৃষ্ঠা- ৫৫। সিয়ারে আ’লামুনুবালা : খন্ড- ২, পৃষ্ঠা- ৪২৭)

Leave a Reply

Your email address will not be published.