আবু হুরায়রা রাঃ এর ১০০ ঘটনার ৬ নং ঘটনা

উচ্ছিষ্ট খাদ্য দ্বারা উদরপূর্তি

একবার আবু হুরায়রা রা, অত্যন্ত ক্ষুধার্ত অবস্থায় ওমর ইবনুল খাত্তাব রা.’র খেদমতে উপস্থিত হলেন। ওমর রা. তখন নামাযের পরবর্তী তাসবীহসমূহ পড়ছিলেন। আবু হুরায়রা রা. তাঁর কাছে দাঁড়ালেন এবং অবসর হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে থাকলেন। যখন তিনি অবসর হলেন, তখন আরজ করলেন, আমাকে পবিত্র কোরআন মাজীদের কিছু
আয়াত পড়ে শােনান।
.
আবু হুরায়রা রা. বলেন, আমার উদ্দেশ্য ছিল ওমর রা. আমাকে খানা খাওয়ার জন্য ডাকবেন। কিন্তু তিনি (শুধু) আমাকে সূরা আলে ইমরানের কিছু আয়াত পড়ে শােনালেন। পরে উভয়ে ওখান থেকে উঠে চলে গেলেন। ওমর রা. ঘরে প্রবেশের সময় আবু হুরায়রা রা.-কে দরজায় সামনে রেখে গেলেন। আবু হুরায়রা রা, ভেবেছিলেন সম্ভবত পােষাক পাল্টাতে তিনি ঘরে গেছেন, পরে এসে হয়তাে আমাকে ডেকে খেতে নিয়ে যাবেন। কিন্তু দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পরও ওমর রা.’র আর দেখা মিলল না। নৈরাশ হয়ে আবু হুরায়রা রা. ফিরে আসতেই আচমকা
দেখলেন সারওয়ারে কায়েনাত রাসূলুল্লাহ সা. তাশরীফ আনছেন।
প্রিয়নবী সা, কাছে এসে আবু হুরায়রা রা.’র সাথে কথা বলতে লাগলেন।
কথােপকথনের এক পর্যায়ে তিনি বললেন, “আবু হুরায়রা! তােমার মুখ
থেকে দুর্গন্ধ আসছে কেন? মনে হচ্ছে তুমি রােজা রেখেছাে?” আবু
হুরায়রা রা, প্রত্যুত্তরে বললেন, “জ্বী হ্যা, ইয়া রাসূলাল্লাহ্ সা., আমি
ইফতার ছাড়া অনবরত রােজা রেখেই চলেছি। আমার কাছে এমন
কোনাে বস্তু নেই যা দ্বারা আমি ইফতার করতে পারবাে।” প্রিয়নবী সা.
বললেন, “আমার সাথে চলাে।”
.
কথা মতাে আবু হুরায়রা রা. সাথে চললেন এবং রাসূলে আকদাস সা.- এর বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছে গেলেন। সেখানে পৌছার পর রাসূলুল্লাহ সা. তাঁর এক কালােবর্ণের বাদীকে ডেকে বললেন, “ঐ পাত্রটি নিয়ে এসাে।”
নির্দেশ মতাে সে পাত্রটি নিয়ে এলাে। ওটাতে সামান্য পরিমাণ খাদ্যের
অবশিষ্টাংশ ছিল। সম্ভবত পাত্রটিতে গম দিয়ে তৈরি কোনাে খাদ্যবস্তু
ছিল। প্রিয়নবী সা, সেগুলাে খেয়েছিলেন।
.
অবশ্য সামান্য পরিমাণ খাদ্য এখনাে পাত্রটির গায়ে লেগে আছে। আবু হুরায়রা রা. বিসমিল্লাহ্ পড়ে প্রিয়নবী সা.’র অবশিষ্ট খাবার খুঁটে খুঁটে খেতে লাগলেন। খেতে খেতে তাঁর পেট ভরে গেলাে। পরিতৃপ্তিবােধ
হতে লাগলাে এবং ক্ষুধাও সম্পূর্ণ কেটে গেলাে।
.
(তবক্কাতে ইবনে সা’আদ : খন্ড- ২, পৃষ্ঠা- ৫৩। আলবিদায়া ওয়ান্নিহায়াহ :
খন্ড- ৮, পৃষ্ঠা- ১১০। সহীহ বুখারী : হাদীস নং ৪৯৫৬। তিরমিজী শরীফ :
হাদীস নং ২৪০১। মুসনাদে আহমাদ : হাদীস নং ১০২৬৩)

Leave a Reply

Your email address will not be published.